কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক বার্তা প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।। সম্মানিত ভিজিটর ওয়েবসাইটে যদি কোন অকার্যকর লিঙ্ক দেখেন তাহলে অনুগ্রহ করে "Contact Menu" এর মাধ্যমে জানান।। জাযাক আল্লাহ খাইরান!!

যাকে তাকে শায়খ বলা

হিন্দু থেকে মুসলমান হওয়া হুজুর, ৪ বছরের বক্তা, মায়ের পেট থেকে হাফেয, নারী থেকে পুরুষ হওয়া হুজুর .. ইত্যাদী লক্বব লাগানো কাদের স্বভাব?

পীরানে পীর, আওলাদে রাসূল, হযরতুল আল্লাম .. ইত্যাদী কয়েক লাইন যাবত লক্ববের ভীড়ে নাম খুজে পাওয়া মুশকিল। এগুলো কাদের চিহ্ন?

এক কথায় বিদআতীদের। কিন্তু দু:খজনক হলেও সত্য যে, আজ আহলে হাদীছরাও বুঝে-অবুঝে এই পথে ধাবিত হচ্ছে। এখনো সময় আছে সাবধান হওয়ার।

শায়খ মতিউর রহমান মাদানীর দারসে কয়েকদিন বসার পর এখন নিজেই দাওয়াত দিচ্ছেন তিনি শায়খ। কয়েকদিন অনলাইনে শায়খগণের বক্তব্য শুনেছেন এখন হটস আপে প্রশ্নোত্তর দিচ্ছেন তিনি শায়খ। ভ্রান্ত আক্বীদা থেকে ছহীহ আক্বীদায় এসেছে তোতা পাখির মত মুখস্থ কয়েকটা রেফারেন্স বলে সে শায়খ। আমাদের মত অল্পবয়সীদের উদীয়মান, তরুণ কত কি লক্বব লাগিয়ে শায়খ। এখন যেন শায়খের বন্যা চলতেছে।

আচ্ছা! আমাদের মাঝে কি আলেমের এতই অভাব? আমাদের মাঝে কি ইলমের এতই দৈন্যতা? যে যাকে তাকে শায়খ বলতে হবে?

আল-হামদুলিল্লাহ আমাদের আছেন মদীনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট করা তিন জন এবং অনার্স-মাস্টার্স করা প্রায় অর্ধ শতাধিক আলেমে দ্বীন।

কই আমরা তো তাদের নিয়ে কোন দিন বিভিন্ন সম্মেলনে করিনা? বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কয়েক ডজন মাদানী শায়খ আছেন, অনেক শায়খগণ সউদী আরব থেকে বাংলাদেশে এসে ঘুরে যান তাদের কেউ মাথায় তুলে প্রাপ্য সম্মানটুকু দেয়না। অথচ যাদের পেট থেকে আলিফ বের হবেনা তাদের নামের আগে ১৪ রকম লকব লাগিয়ে শায়খ বানিয়ে দিচ্ছি। আফসোস!

জেনে রাখবেন, মুখস্থ বিদ্যার নাম জ্ঞান নয়। কয়েকটা রেফারেন্স তোতা পাখির মত মুখস্থ শুনিয়ে দেওয়ার নাম ইলম নয়। আপনি যাকে শায়খ বলবেন অন্তত পক্ষে তার একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ড জানা থাকতে হবে। তার ইলম কেমন তা জানা থাকতে হবে। ইলম মানে আরবী বুঝতে পারতে হবে। যের-যবর-পেশ ছাড়া পড়তে পারতে হবে। উসূলে হাদীছ, উসূলে ফিক্বাহ, উসূলে তাফসীরের জ্ঞান থাকতে হবে।

কোন একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ড ছাড়াই জাহেলদেরকে শায়খ বলার যে ফিতনা শুরু হয়েছে তা থেকে এখনি বিরত না থাকলে অদূর ভবিষ্যতে রাসূল (ছা:)-এর ওই হাদীছের সম্মুখীন আমাদের হতে হবে,

“ইলম উঠিয়ে নেওয়া হবে। কোন আলেম থাকবেনা। মানুষ জাহেলদেরকে আলেম মনে করবে। তারা ভুল ফতোয়া দিবে। নিজেরাও পথ ভ্রষ্ট হবে অন্যদেরকেও পথ ভ্রষ্ট করবে”।

ওয়াল ইয়ায বিল্লাহ।

***লেখকঃ আব্দুল্লাহ বিন আব্দুর রাজ্জাক***

Share This Post
error:

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow